গ্যালারি

অপূর্ণ জ্ঞান

মানুষ এমন এক সৃষ্টি যার মাঝে ঘটেছে বৈপরিত্যের বিপুল সমাহার। একই সঙ্গে সে প্রখর মেধা, তীক্ষ্ন জ্ঞান, নব সৃজন, নয়া উদ্ভাবন ও নিজেকে নিয়ে চিন্তা করার মতো শক্তির অধিকারী। তেমনি সে রূপকথা ও কল্পকাহিনী নির্মাণ এবং তার যথেচ্ছ ব্যবহারেও সক্ষম। বক্ষ্যমাণ প্রবন্ধে এ বিষয়টির উপরই আলোকপাত করা হয়েছে। বিস্তারিত পড়ুন

গ্যালারি

মানুষের হিসাব নিকাশের সময় নিকটবর্তী অথচ তারা বেখবর হয়ে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে

“মানুষের হিসাব নিকাশের সময় নিকটবর্তী অথচ তারা বেখবর হয়ে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে।” (সুরা আম্বিয়া, ২১ : ১) সুতরাং যখন নির্ধারিত সময় আসবে এবং জগৎসমূহের স্রষ্টার সম্মুখে মানুষের দাঁড়ানোর সময় নিকটবর্তী হবে: “শিংগায় ফুৎকার দেয়া হবে — একটিমাত্র ফুৎকার এবং পৃথিবী … বিস্তারিত পড়ুন

জ্ঞানের উৎস এবং ব্যাখ্যা – জাফর শেখ ইদ্রীস

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

পরম করুণাময় আল্লাহর নামে শুরু করছি। তাঁর জন্যই সকল প্রশংসা। সালাত ও সালাম মহান রাসূল, আল্লাহর হাবীব ও মানবতার মুক্তিদূত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, তাঁর পরিবারবর্গ ও সঙ্গীদের উপর।

মুসলমানদের জ্ঞানের উৎস দুটি।

  • ১. আল্লাহ’র ওহী।
  • ২. আল্লাহ’র সৃষ্টি।

এক্ষেত্রে আমরা বস্তুবাদী, নাস্তিক ও যারা কোন বিশ্বস্ত গ্রন্থ পায়নি তাদের সাথে দ্বিমত পোষণ করি। তাদের জন্য একমাত্র জ্ঞানের উৎস এই পৃথিবী, আল্লাহ তাআলার সৃষ্টিকুল।

আমরা বৈজ্ঞানিক পদ্ধতির কথা জানি। এই পদ্ধতি আমাদের সত্য উদঘাটনে সাহায্য করে। আমরা মুসলমানরা বিশ্বাস করি জ্ঞানের অন্য উৎস হতে সত্য উদঘাটনের জন্যও একটি পদ্ধতি আছে। সুতরাং প্রকৃতি থেকে শিক্ষা নেওয়ার জন্য আমরা যেমন বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি অনুসরণ করি, তেমনি পবিত্র কুরআন ও হাদীসের অন্তর্নিহিত জ্ঞান আহরণের জন্য একটা নির্দিষ্ট পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবে। বাকিটুকু পড়ুন